ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিখতে পারেন কোরিয়ান ভাষা!

0
685

২০২০ সালের ইপিএস কোরিয়া সার্কুলার (লটারি) তে যাদের নাম এসেছে তাদের পরবর্তী ধাপ হচ্ছে কোরিয়ান ভাষা শিখা! এটি সরকারি ভাবে কোরিয়া যাওয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। লটারিতে যাদের নাম আসছে তাদের এতো বেশি আনন্দিত হওয়ার কোন প্রয়োজন নেই।

আগেই বলে রাখি এই সিস্টেম টা খুবই দীর্ঘ মেয়াদি প্রক্রিয়া। সম্পূর্ণ এবং চড়ান্ত ধাপে যেতে হলে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। অনেক সময়ের ব্যাপার। যারা ভাবছেন আমার লটারিতে নাম আসছে মানে আমি কোরিয়া চলে যাবো। আমার চাকুরি বা ব্যাবসা ছেড়ে দিয়ে ঢাকা গিয়ে কোন কোচিং এ ভর্তি হবো! তাদেরকে বলছি এই ভূল টা একদম করবেন না।

এই কোরিয়ার লালসায় নিজের চাকুরি বা ব্যাবসা ছেড়ে দিবেন না। বরং নিজের চাকুরি,  ব্যাবসা বা পড়াশোনার পাশাপাশি কোরিয়ান ভাষা শিখুন। নিজের কাজের পাশাপাশি এই প্রক্রিয়া চালিয়ে যান। শুধু মাত্র ভাষা শিখতে ঢাকা যাওয়া মানে অনেক টাকার ব্যাপার! বাসা ভাড়া, থাকা খাওয়ার অসুবিধা, অনেক ছাত্র ছাত্রীদের ভীড়ে ক্লাস করা, নিজের কাজ বন্ধ রেখে চলে যাওয়া ইত্যাদি সব মিলিয়ে অনেক টাকা এবং সময়ের ব্যাপার!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় অনেক ভালো কোরিয়ান ভাষা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যেখানে বিজ্ঞানসম্মত ভাবে কোরিয়ার ভাষা শিখানো হয়। অত্যন্ত  অত্যাধুনিক প্রদ্ধতিতে ধাপে ধাপে প্রতিটি ক্লাস করানো হয়। সেই সাথে রয়েছে ভাষা পরীক্ষা অনুশীলন করার নির্দিষ্ট সফটওয়্যার
যে কেউ খুব সহজে এই সফটওয়্যার এর মাধ্যমে বিনামূল্যে বাসা বাড়িতে  অনুশীলন করতে পারবে।

কোরিয়া যাওয়ার এই প্রক্রিয়া সচ্ছল এবং একদম দুর্নীতিমুক্ত। তবে ইহার একটি খারাপ দিক রয়েছে সেটা হচ্ছে দীর্ঘদিন অপেক্ষা এবং ধৈর্য ধারণ করতে হয়। নিজ নিজ অবস্থানে থেকে কোরিয়ান ভাষা শিখুন।

যাদের লটারিতে নাম আসছে এবং যাদের সিরিয়াল নম্বার  মোটামুটি জেনারেল লিস্টের কাছাকাছি তাদেরকে বলবো শীঘ্রই কোরিয়ান ভাষা শিখা শুরু করে দেন। চড়ান্ত রেজিষ্ট্রেশন এর পর অনেকেই অনেক কম সময় পাবেন প্রস্তুতির জন্য। ভাষা শিক্ষা এবং কোরিয়ার ইপিএস সম্পর্কে যে কোন তথ্য জানতে যোগাযোগ করুন ব্রাহ্মণবাড়িয়া কোরিয়ান ভাষা শিক্ষা কেন্দ্রে। অথবা ফোন করুন কোরিয়ান ভাষার জনপ্রিয় এবং দক্ষ শিক্ষক কিবরিয়া স্যার এর কাছে। অফিস : নক্ষত্র, কলেজ পাড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, মোবাইল 01703438381