গোবিন্দপুর গ্রাম জায়ফরনগর ইউনিয়ন

hard logo

গোবিন্দপুর গ্রাম জায়ফরনগর ইউনিয়ন

গোবিন্দপুর হাকালুকি হাওরের পূর্ব দক্ষিণে অবস্থিত। পূর্বের নাম ছিল ডরিরবান।বর্ষাকালে গ্রামটির চারদিকে ডরি পেতে মাছ শিকার করা হতো।তাই এ নামকরণ হয়।পরে বৃটিশ আমলে গ্রামশুমারিকালে এ গ্রামের সমাজকর্মী ব্যক্তি গোবিন্দচন্দ্র দাসের নামে এর নামকরণ হয় গোবিন্দপুর।আবার কারো কারো মতে,সিলেটের রাজা গৌড় গোবিন্দের অবকাশকালীন ও পাহাড়ে পশু শিকারের জন্য নির্মিত বাগান বাড়ি ছিল বলে এ গ্রামের নাম গোবিন্দপুর হয়েছে।একদিকে হাওর অন্যদিকে পাহাড় নিয়ে দু’ভাগে সদর বাড়ি ও অন্দর বাড়ি পৃথক করে গ্রামটি তৈরি।দু’ভাগে দু’টো বড়ো পুকুর নিয়ে গ্রামটি সাজানো।দেখলে জমিদার বাড়ি মনে হবে পুরো গ্রামকে।

গ্রামের প্রথম আরবি শিক্ষিতদের মধ্যে মৌলবী এবাদ উল্লাহ,মৌলানা এরশাদ আলী ও মৌলানা ইদ্রিস আলী,যারা ভারতের মুরাদাবাদ থেকে ফারিগ।প্রথম ইংরেজি শিক্ষিত মোঃ মদরিছ আলী।লোকসাহিত্যিক ও ভাষা সংগ্রামী আমির সাধু এ গ্রামের সন্তান।একই সাথে বিজ্ঞান কবিতা আন্দোলনের প্রবর্তক ও বিজ্ঞানবাদ রাষ্ট্র দর্শনের উপস্থাপক কবি হাসনাইন সাজ্জাদী এ গ্রামের সন্তান।তিনি আমির সাধুর নাতি।আমির সাধুর অপর ছেলের ঘরের নাতি আনোয়ারুল ইসলাম এ গ্রামের প্রথম আইনজীবী।তিনি সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী।দেশ-বিদেশে এ গ্রামের অনেক ব্যক্তি এখন জ্ঞান-বিজ্ঞানের আলো জ্বালাচ্ছে।এ গ্রামে অনেক প্রবাসী বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে দেশকে সমৃদ্ধ করছে।আমেরিকা প্রবাসী অনুপ্রেরণা প্রদানকারী বক্তা হিজবুর রহমান জীবন এ গ্রামেরই সন্তান এবং আমির সাধুর ছোটো ভাই ইদ্রিস আলীর নাতি।